Sale!

বিক্রমপুরের প্রাচীন তিনটি রাজপ্রাসাদ ও মহারাজা বল্লাল ওরফে নবাব আবুল ওরফে বাদশাহ মঙ্গৎ রায়

বিক্রমপুরে কয়েকটি প্রাচীন রাজপ্রাসাদ ছিল। এই রাজপ্রাসাদগুলোর মধ্যে তিনটি ছিল সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। এই তিনটি রাজপ্রাসাদই বিশাল ও জমকালো। এদের মধ্যে একটি রাজনগর, একটি বহর ও একটি জপসার নামক জনপদে।

৳ 595.00 ৳ 476.00

Out of stock

Book Details

Language

Binding Type

ISBN

Publishers

Release date

Pages

Size

8.5 X 5.5

Weight

Price

Tk 595 US : $ 20 UK : £ 12

About The Author

জয়নাল আবেদীন খান

জয়নাল আবেদীন খান জন্ম: ১৯৪৪ খ্রিস্টাব্দে। পৈত্রিক নিবাস : গ্রাম-বেশনাল, থানা - টঙ্গিবাড়ী, জেলা - মুন্সিগঞ্জ। পিতা: আব্দুল খালেক খান, মাতা: রবেদা বেগম। শিক্ষাজীবন: ১৯৭০ খ্রিস্টাব্দে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। শিক্ষাজীবনে তিনি একজন মেধাবী ছাত্র হিসেবে পরিচিত ছিলেন। কর্মজীবন: ১৯৭২ খ্রিস্টাব্দে তিনি অধ্যাপনা পেশায় নিয়োজিত হন এবং সুদীর্ঘ ৩৬ বছর একই পেশায় নিয়োজিত থাকেন। বর্তমানে তিনি অবসর জীবন যাপন করছেন। অধ্যাপক জয়নাল আবেদীন খান বিক্রমপুর ও বাংলার ইতিহাসের একজন নিভৃতচারী ও প্রচারবিমুখ গবেষক। ১৯৭২ খ্রিস্টাব্দ থেকে তিনি অধ্যাপনার পাশাপাশি নিরলসভাবে গবেষণাধর্মে নিয়োজিত আছেন। তার একটি গবেষণামূলক গ্রন্থ বিক্রমপুরের নবাব বল্লাল সেন ও ঢাকেশ্বরী মন্দির, প্রকাশক : দেলোয়ারা বেগম, ১৯৯৭ সালে প্রকাশিত হয়। তিনি পশ্চিমবঙ্গ ইতিহাস সংসদের আজীবন সদস্য। লেখকের যেসব পাণ্ডুলিপি গ্রন্থ আকারে প্রকাশের অপেক্ষায় সেগুলো হলো: বিক্রমপুরের প্রাচীন পুকুর-দিঘি, বিক্রমপুরের বিখ্যাত রাজাবাড়ীর মঠ, বিক্রমপুরের বাবা আদমের মসজিদ ও বাবা আদমের মাজার, বঙ্গে দুর্গা ও চতুর্ভুজা কালী দেবীর পূজা, ঢাকা লালবাগ কেলা ও পরীবিবির মাজার, দিনাজপুরের কান্তজী মন্দির, সন বলালি ও নবাব বল্লাল, মাংতা (বেদে) সমতল বঙ্গে একটি পার্বত্য কৌমসমাজ। বইগুলো পাঠক সমাবেশ ধারাবাহিক প্রকাশ করবে।

রাজপ্রাসাদগুলো কে নির্মাণ করান, কখন করান, কেনই বা করান এই সব বিষয়ের উপর এই গ্রন্থে বিস্তৃত আলোচনা করা হয়েছে। যুক্তি ও সাক্ষ্য-প্রমাণের মাধ্যমে দেখানো হয়েছে যে এগুলো আসলে কোন বিশুদ্ধ হিন্দু মন্দির কিংবা বিশুদ্ধ হিন্দু রাজপ্রাসাদ নয়। প্রকৃতপক্ষে মগ প্রাসাদ-মন্দির। অনাদৃত ও অবহেলিত তথ্য ও উপকরণ নতুন করে সাজানো হয়েছে এবং নতুনভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। এ ধরনের গবেষণা নির্ভর গ্রন্থে বিস্তৃত তথ্য নির্দেশ থাকার প্রচলিত রীতি ঘনিষ্ঠ ভাবে অনুসরণ করত। প্রচুর উদ্ধৃতি ব্যবহার এবং কিছু চিত্রও সংযুক্ত করা হলো পাঠকদের জন্য।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “বিক্রমপুরের প্রাচীন তিনটি রাজপ্রাসাদ ও মহারাজা বল্লাল ওরফে নবাব আবুল ওরফে বাদশাহ মঙ্গৎ রায়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *